ঢাকা, আজ বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০

ভুয়া সচিব-কর্নেল পরিচয়ে প্রতারণা, আটক ৯

প্রকাশ: ২০১৯-০২-২৭ ১০:২৯:১৩ || আপডেট: ২০১৯-০২-২৭ ১০:২৯:১৩

উচ্চপদস্থ সব পদের পরিচয় ব্যবহার করে চাকরি দেয়ার নামে কোটি টাকা হাতিয়ে নিত একটি প্রতারকচক্র।

ওই প্রতারক চক্রের কেউ লেফটেন্যান্ট কর্নেল, কেউ সচিব, কেউবা জাতীয় মানবাধিকার সংস্থার সদস্য পরিচয় দিতেন।

রাজধানীর মতিঝিল থেকে প্রতারকচক্রের ৯ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-১০।

আটককৃতরা হলেন- আব্দুল হান্নান (৩১), তারিকুল ইসলাম ওরফে তারেক (৪০), মো. রাসেল (২৬), রবিউল করিম ওরফে ডলার (৪২), মাসুদুল হক (৬৫), এমএম রবিউল আউয়াল (৩৯), মিজানুর রহমান ওরফে বাদশা (৪০), হাফিজুর রহমান (৪৬) ও একজন কিশোর।

আটকের সময় তাদের কাছ থেকে একাধিক সিপিইউ, মনিটর, প্রিন্টার, স্কানার, সিল তৈরির মেশিন, ভুয়া নিয়োগপত্র ২৫টি, ব্যাংক নিয়োগপত্র ৯৪টি, ব্যাংক চেক ৫টি, ব্যাংক স্ট্যাম্প, সরকারি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সিল ১০০টি, মোবাইলফোন ও নগদ টাকা জব্দ করা হয়।

র‌্যাব-১০ এর উপঅধিনায়ক মেজর মো. আশরাফুল হক বলেন, এই চক্রের খপ্পরে পড়ে বহু চাকরিপ্রত্যাশী বেকার সর্বস্ব হারিয়েছে।

সাক্ষাৎকার নেয়ার নাটক করে চাকরির নিশ্চয়তা দিয়ে বিশ্বাস অর্জনের জন্য নকল নিয়োগপত্র তৈরি করে সরবরাহ করতো তারা।

নিয়োগপত্র দেয়ার পর চাকরিপ্রত্যাশীরা তাদের নিয়োগস্থলে কাজে যোগদান করতে গিয়ে দেখতো পুরো বিষয়টিই ভুয়া।

এভাবেই এই চক্র অসংখ্য চাকরিপ্রত্যাশীকে সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী ও বিভিন্ন সরকারি সংস্থার চাকরি দেয়ার নামে লাখ লাখ টাকা আত্মসাৎ করে আসছিল।

র‌্যাব-১০ এর উপঅধিনায়ক মেজর মো. আশরাফুল হকের নেতৃত্বে স্কোয়াড কমান্ডার এএসপি মো. শাহীনুর চৌধুরী ও এএসপি মো. শহীদুল হক মুন্সীর সমন্বয়ে একটি দল মতিঝিল এলাকা থেকে তাদের আটক করে।

এসব অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে রাজধানীর মতিঝিল থানায় রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন।