ঢাকা, আজ মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১

বিআরটিসির বহরে যুক্ত হচ্ছে ৬০০ বাস

প্রকাশ: ২০১৯-০২-০৩ ১০:১৬:০০ || আপডেট: ২০১৯-০২-০৩ ১০:১৬:০০

এপ্রিলের মধ্যে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশনের (বিআরটিসি) জন্য আনা হচ্ছে নতুন ছয়শ বাস। প্রথম কিস্তিতে এসেছে ৬টি বাস। নতুন বাসের সঙ্গে রাজধানীর সড়কে থাকবে পুরাতন ৯২১টি বাসও। এতে গণপরিবহনের সংকট কমবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

বিআরটিসির সূত্র জানায়, আরও পাঁচটি এসি বাস, ৪২টি সাধারণ বাস এবং ২৫টি ট্রাক আনার জন্য বেনাপোল সীমান্তে গেছে বিআরটিসির দুটি প্রতিনিধি দল। দু-একদিনের মধ্যে রেজিস্ট্রেশনের জন্য সেগুলো বিআরটিএতে যাবে। এরপর পাঠানো হবে চাহিদা দেয়া ডিপোগুলোতে। ফেব্রুয়ারির প্রথম বা দ্বিতীয় সপ্তাহে এসব বাস রাস্তায় নামার সম্ভাবনাও রয়েছে।

সহজ শর্তে ২০০ কোটি ডলার ঋণের আওতায় ভারত থেকে ৬০০ বাস ও ৫০০টি ট্রাক আনা হচ্ছে। এসব বাসের মধ্যে ৩০০টি দ্বিতল বাস, ১০০টি একতলা সাধারণ বাস এবং ২০০টি এসি বাস আসার কথা রয়েছে। দ্বিতল ও একতলা এসি বাসগুলো তৈরি করছে ভারতের গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অশোক লিল্যান্ড। সব বাস-ট্রাক এপ্রিলের মধ্যে দেশে আসবে।

এ ব্যাপারে বিআরটিসির চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ ভূঁইয়া বলেন, ‘নতুন আসা বাসগুলো আগের বিআরটিসি বাসের মতো হবে না। এসব বাসের সঙ্গে ১০ ভাগ খুচরা যন্ত্রাংশ আনা হচ্ছে। আর বাসের কলাকৌশল নিয়ে বিআরটিসির কর্মীদের প্রশিক্ষণও দেবে বাস নির্মাতা কোম্পানি।

বিআরটিসির নতুন বাস আসায় পুরাতন বাসগুলোর কী হবে জানতে চাইলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশনের (বিআরটিসি) ডিজিএম (অপা.)-১ মো. আলমাছ আলী জাগো নিউজকে বলেন, আমাদের পুরাতন বাস রয়েছে ৯২১টি। এর মধ্যে লিজে বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের কাছে রয়েছে ৮৮টি। নতুন যে ৬শ’ বাস আনা হচ্ছে তার সঙ্গে পুরাতন বাসগুলোও চলবে। পুরাতন বাসগুলোর যান্ত্রিক সমস্যা নিরসনের জন্য নতুন বাস আমদানির সঙ্গে আনা হচ্ছে ১০ শতাংশ খুচরা যন্ত্রাংশও। এতে করে পুরান বাসগুলোও যান্ত্রিক ত্রুটিমুক্ত হবে।

তিনি বলেন, দ্বিতল বাসগুলো ঢাকার বিভিন্ন রুটে চলবে এবং একতলা বাস ঢাকা ও বাইরের জেলার বিভিন্ন রুটে চলবে। আর পুরাতন বাসগুলোর অধিকাংশই পাঠানো হবে ঢাকার বাইরের জেলাগুলোতে।

লিজে বাস চালানোয় সম্প্রতি সেতুমন্ত্রী আপত্তি জানিয়েছেন। গচ্চা দিয়ে লিজে বাস চালানো বন্ধের চিন্তা-ভাবনাও চলছে বলে জানিয়েছেন বিআরটিসির আরেক কর্মকর্তা। নাম প্রকাশ না করার শর্তে তিনি বলেন, লিজে থাকায় বিআরটিসির ৮৮টি বাসের সেবা বঞ্চিত ছিল যাত্রী সাধারণ। লিজ থেকে বিআরটিসির ওই সব বাস যাত্রী সাধারণের জন্য ফের চালু করা হবে।

নিয়োগ হচ্ছে ৫ শতাধিক চালক-হেলপার

নতুন বাস আনার মধ্য দিয়ে চালক ও হেলপারের সংকট যাতে তৈরি না হয় সেজন্য ৫শ’ চালক ও আরও ২শ’ হেলপার নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে।

এ ব্যাপারে বিআরটিসির জেনারেল ম্যানেজার (প্রশাসন ও পার্সোনাল) মো. কামরুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, চালকের অভাবে যেন পুরান ও নতুন কোনো বাস পড়ে না থাকে সেজন্য গত মাসে ৩১৬ জন নিয়োগের সার্কুলার দেয়া হয়েছিল। তার মধ্য থেকে ১৮৪ জন চালককে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। কোটার কারণে ও প্রশিক্ষিত-দক্ষ চালক না পাওয়ায় পুনরায় ওই পরিমাণ চালক পাওয়া যায়নি। তাই আবারও নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে। ৭ ফেব্রুয়ারি নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ৪শ’ চালক চাওয়া হয়েছে। এবার অভিজ্ঞতা চাওয়া হয়েছে ৩ বছর। দক্ষ চালকদেরই শুধু নেয়া হবে। এরপর তাদের আবার প্রশিক্ষণ দেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, রাজধানীর যেসব এলাকায় পরিবহন সংকট রয়েছে, সেসবের একটা তালিকা প্রস্তুত করা হচ্ছে। সেই সব রুটে কিছু নতুন বাসের সঙ্গে পুরাতন বাসও চালানো হবে। এজন্য নো ওয়ার্ক নো পে সিস্টেমে বেশ কিছু চালকের প্যানেল তৈরি করা হয়েছে। আশা করছি, পরিবহন সংকট কমার পাশাপাশি আমাদের চালকের সংখ্যাও বেড়ে যাবে।